মানসিক অসুস্থতা কী?

 

মানসিক অসুস্থতা এমন একটি অবস্থা, যাতে একজন ব্যক্তির চিন্তাভাবনা, আবেগ ও ব্যবহার প্রভাবিত হয়ে থাকে। একই সাথে মানসিক অসুস্থতার কারণে ব্যক্তির দৈনন্দিন কার্যকলাপ নির্বাহ করা বা ব্যক্তিগত সম্পর্ক বজায় রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। কিছু ব্যক্তির ক্ষেত্রে সারা জীবনে কেবল একবার মানসিক অসুস্থতা হতে পারে। আবার অনেকে একাধিকবার মানসিকভাবে অসুস্থ হতে পারেন এবং মাঝের সময়গুলোতে সুস্থও থাকতে পারেন। তবে মুষ্টিমেয় কিছু ব্যক্তির জীবনে মানসিক অসুস্থতা চলমান অবস্থায় থাকতে পারে।

মানসিক অসুস্থতাও বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। বিষণ্ণতা ও উদ্বেগব্যাধির মতো কিছু অসুস্থতা যেমন প্রায়শ দেখা যায়, তেমনি সিজোফ্রেনিয়া ও বাইপোলার ডিজঅর্ডারের মতো বিরল কিছু মানসিক রোগও রয়েছে। তবে, প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টিকারী মানসিক রোগগুলো ক্ষেত্রবিশেষে বেশ গুরুতর হয়ে থাকে। যাদের কোনো প্রকার মানসিক রোগের অভিজ্ঞতা নেই, তাদের পক্ষে এসব রোগের ভয়াবহতা বোঝা সহজ নয়। 

বৃহদার্থে মানসিক স্বাস্থ্য ইস্যু বলতে মানসিক অসুস্থতা বা মানসিক রোগের বিভিন্ন লক্ষণকেও নির্দেশ করে, যেগুলো মানসিক অসুস্থতা নির্ণয় করার মতো যথেষ্ট তীব্র নাও হতে পারে। আবার অন্যদিকে, আত্মহত্যার চিন্তার মতো তীব্র মানসিক স্বাস্থ্যসংকটও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত।

মানসিক রোগের কতিপয় সাধারণ লক্ষন:

  • মাত্রাতিরিক্ত হতাশা বোধ বা দীর্ঘ সময ধরে বিষন্নতা,
  • দীর্ঘ সময ধওে উদ্বিগনতা/ অস্থিরতায় ভোগা,
  • ভয় পাওয়া,
  • অযথা সন্দেহ করা/ বিশ্বাস না করা,
  • নিজেকে গুটিয়ে রাখা,
  • মাত্রাতিরিক্ত কথা বলা,
  • একেবারে চুপচাপ হয়ে যাওয়া,
  • বিবেচনা বোধ কমে যাওয়া,
  • পরিমিত ঘুম না হওয়া,
  • দূর্বলতা বোধ করা,
  • আত্মতহ্যার চিন্তা করা,
  • আত্মতহ্যার চেষ্টা করা,
  • অলীক কিছু দেখা/আশপাশে অস্তিত্ব নেই এমনকিছু দেখা,
  • সহিংস আচরন করা,
  • একা একা কথা বলা,
  • গায়েবি  আওয়াজ শোনা,